পেট সিটি বিভাগ

“পেট-সিটি এন্ড সাইক্লোট্রন” স্থাপন প্রকল্পের মাধ্যমে বর্তমানে একটি পেট-সিটি স্থাপিত হয়েছে যার মাধ্যমে প্রচুর রোগী বিশেষত ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। এছাড়া উক্ত প্রকল্পের অধীনে অতিসত্বর একটি Cyclotron বিএসএমএমইউ এর চত্বরে স্থাপিত হতে যাচ্ছে। PET-CT স্থাপনের ফলে ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য রোগীদের বিদেশে যাওয়ার হার হ্রাস পেয়েছে। এর ফলে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় হচ্ছে। এই পরীক্ষাটি করতে হলে পূর্বেই অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে হয় এবং নির্দিষ্ট তারিখে সকল কাগজপত্র সহ সাক্ষাত করতে হয়।

পেট-সিটি (PET-CT) পরীক্ষা প্রণালীঃ
PET-CT পরীক্ষার জন্য হাতে ক্যানুলা স্থাপন করে ইঞ্জেকশন দেয়া হয়। ইঞ্জেকশনের পর স্ক্যান হবার পূর্বে আনুমানকি এক ঘন্টা অপক্ষো করতে হয়। এই এক ঘন্টা সময় চোখ বন্ধ করে বসে অথবা শুয়ে বিশ্রাম করতে হবে এবং স্ক্যান এর জন্য ২০-২৫ মিনিট চিত হয়ে মেশিনের বেডে শুয়ে থাকতে হবে। সমগ্র প্রনালী সম্পাদনের জন্য আনুমনিক মোট ৪-৫ ঘন্টা সময় লাগতে পারে এবং কথা বলা থেকে বিরত থাকতে হবে।

PET-CT পরীক্ষার নির্দেশনাবলীঃ
PET-CT পরীক্ষাটি একটি বিশেষ পরীক্ষা। এই পরীক্ষাটি সুষ্ঠভাবে সম্পাদনের জন্য এবং নির্ভুল রিপোর্ট প্রাপ্তির জন্য নিম্নলিখিত প্রস্তুতিগুলো মেনে চলা অত্যন্ত জরুরী। অনুগ্রহ করে ভালোভাবে পড়ুন। বুঝতে না পারলে ডাক্তারকে জিজ্ঞেস করুন।

গর্ভবতী অবস্থায় এই পরীক্ষা করা নিষেধ। মহিলা রোগীদের মাসিক এক মাস অথবা বেশীদিন বন্ধ থাকলে তা ডাক্তারকে অবশ্যই জানান।

১। পূর্ণ বিশ্রামে থাকবেন।
২। চিনি/মিষ্টান্ন/মিষ্টি ফল খাওয়া নিষেধ।
৩। শর্করা জাতীয় খাবার কম খাবেন। যেমনঃ প্রতিবেলায় ভাত ১ কাপ অথবা আটার রুটি ১ পিস।
৪। সব্জি খেতে পারেন তবে আলু, বাঁধাকপি ও শাক খাবেন না।
৫। আমিষ জাতীয় খাবার বেশী পরিমানে খাওয়া যাবে; ডিম/ মাছ/ মুরগীর বুকের মাংস ২-৩ পিস পর্যন্ত - প্রতি বেলায়
৬। চা, কফি, কোকাকোলা, পান, জর্দ্দা, ধুমপান ইত্যাদি নিষেধ।
৭। দুধ ও দুধের তৈরি খাবার নিষেধ।
৮। চব্বিশ ঘন্টায় দুই থেকে আড়াই লিটার (৬-৮ গ্লাস) পানি পান করবেন।
৯। কোষ্ঠকাঠিন্য থাকলে, পেট পরিষ্কার রাখতে ল্যাক্সটিভ যথাঃ Tab. Laxative ০+০+২ .................. /
১০। রাতের খাবার ১০টা থেকে ১২টার মধ্যে খেয়ে নিবেন।

১১।ডায়াবেটিক রোগীর জন্য বিশেষ নির্দেশাবলীঃ
(ক) ডায়াবেটিস সম্পূর্ন নিয়ন্ত্রনে থাকতে হবে।
(খ) ডায়াবেটিক ডায়েট (পূর্ব নির্দেশ অনুযায়ী) গ্রহন করবেন।
(গ) ডায়াবেটিসের ঔষধ (বড়ি/ইনসুলিন) পূর্ব নির্দেশ অনুযায়ী সেবন করবেন।

পরীক্ষার দিন (মঙ্গলবার) সকাল থেকেঃ
১। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর পরীক্ষা শুরু হওয়া পর্যন্ত প্রতি ঘন্টায় ১-২ গ্লাস করে পানি পান করবেন।
২। পোষাকঃ ঢিলেঢালা আরামদায়ক সুতির পোষাক। গরম কাপড় যেমনঃ শাল/কার্ডিগান/কম্বল/মোজা অবশ্যই সাথে আনবেন।
৩। রোগীর পোষাকে কোন ধাতব বোতাম/চেইন/বেল্ট/বকলেস ইত্যাদি থাকতে পারবে না। কোন প্রকার অলংকার/তাবিজ পরিধান করবেন না।
৪। একজন সাহায্যকারী/সঙ্গী নিয়ে আসবেন; রোগীর যদি colostomy করা হয়ে থাকে তবে সাথে একটি পরিষ্কার ব্যাগ ও রোগীকে ব্যাগ পরিবর্তন করতে সাহায্য করতে পারে এমন একজন সাথে নিয়ে আসবেন (পরীক্ষার সময় প্রয়োজন হবে)।
৫। যাদের ওজন ৫০ কেজির নীচে অথবা খালি পেটে কষ্টবোধ হলে সকাল ৬টায় শুধুমাত্র একটি সেদ্ধ ডিম খাবেন।

৬। ডায়াবেটিক রোগীর জন্য বিশেষ নির্দেশনাবলীঃ
(ক) সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর খালিপেটে রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা পরীক্ষা করবেন। যদি ১০ মিলিমোল/লিটার বা ১৮০ মিলিগ্রাম/ডিএল অথবা এর বেশী হয় তবে অতিরিক্ত ২ ইউনিট ইনসুলিন (যেটা আপনাকে প্রেসক্রাইব করা হয়েছে) ত্বকের নীচে প্রয়োগ করবেন।
(খ) সকাল ৬টায় নাস্তাঃ শুধুমাত্র একটি সেদ্ধ ডিম ও দুই গ্লাস পানি (সকল ডায়াবেটিক রোগীর জন্য)
(গ) এছাড়া ডায়াবেটিসের বড়ি খাবেন না ।
(ঘ) ডায়াবেটিসের ঔষধ (বড়ি/ইনসুলিন) সাথে নিয়ে আসবেন।

৭। সকালে পরীক্ষার জন্য খালিপেটে উপস্থিত হবেন; সময়ঃ ৮টা হতে ৮: ৩০ এর মধ্যে; স্থানঃ ডি ব্লক, নয় তলা, সিন্টিগ্রাফী অভ্যর্থনা কাউন্টারের সামনে আসবেন।
৮। পরীক্ষার দিন হাসপাতালে আসার সময় সিঁড়ি ব্যবহার করবেন না; শুধুমাত্র লিফট ব্যবহার করবেন।
৯। চিকিৎসা সংক্রান্ত সকল কাগজপত্র সঙ্গে আনবেন।